উইকেন্ডে জান্দা বাইকে ভ্রমন

জান্দার বাইক কুয়ালা লাম্পুর থেকে প্রায় ঘন্টাখানেক ড্রাইভিং এর পথ। পাহাড়ি এলাকা। পাহাড়ের মাঝে ছোট একটা নদী। এর দুই পাশেই অসংখ্য রিসোর্ট, খাবার দোকান। কয়েকটা জায়গায় পানিতে নেমে সাতার কাটা, গোছল করার ব্যবস্থা আছে। পানি জখব বেশি থাকে তখন রেফটিং ও করা যায়।

পাহাড়ী নদী আর পাশে ছোট ছোট ঘর

আমরা পৌছালাম দুপুরের একটু আগে। নদীর পাশ ধরে জি পি এস দিয়ে দিয়ে একটা মন মত জায়গা খুঁজছিলাম, যেখানে পার্কিং এর জায়গা থাকবে, রেস্টুরেন্ট থাকবে, আর বিশ্রাম নেয়ার মত কোন ছাউনি।

নদীতে পাথর ফেলে পানি জমিয়ে রাখে যাতে সাতার কাঁটা যায়

ঘুরতে ঘুরতে পেয়ে গেলাম জায়গাটা। এটা একটা রিসোর্ট। নাম রিভারসাইড জান্দা রিসোর্ট। রিসোর্ট লাগোয়া একটা রেস্টুরেন্ট ও আছে।

এক পাশ থেকে হেঁটে আরেক পাশ যাচ্ছে
পানি খুব ঠাণ্ডা, এর মধ্যেই সবাই একটি পা, শরীর ভিজিয়ে নেয়
শেষ পর্যন্ত পা ভিজাতে পেরে সিনান আনন্দিত

আমরা গাড়ি পার্কিং করে প্রথমে নদী দেখতে গেলাম। নদীর তীর ধরে কিছুক্ষন হেঁটে এর পর রেস্টুরেন্ট এ এসে বসলাম। খাবার অর্ডার দেয়ার জন্য মেন্যু দেখে হাঁটে নিয়ে দেখি প্রায় সবই মালয় খাবার, সাথে দু একটি ওয়েস্টার্ন খাবার ও আছে। আমরা খাবার আর ড্রিংস ওর্ডার দিয়ে অপেক্ষা করতে লাগলাম। রেস্টুরেন্ট থেকে নদী দেখা যায়। খাবার ডেলিভারী হতে বেশ সময় লাগলো। খাবার খেয়ে আরও কিছুক্ষণ জিরিয়ে চা ওর্ডার করলাম। বেলা প্রায় পড়ে আসতে লাগলো আর ঠাণ্ডার পরিমান বাড়তে লাগলো। জান্দার বাইক জায়গাটি গেনটিং হাইল্যান্ড যাবার পথে পড়ে। এটা পাহাড়ি একটা এলাকা এবং সমতল থেকে উপরে, তাই একটা শীত শীত আমেজ থাকে।

রেস্টুরেন্টের সামনে পার্কিং এর জায়গা

চা খেয়ে আর অপেক্ষা করলাম না, কারন ভরপেট খেয়ে, চা খেয়ে শরীর ছেড়ে দিয়েছে।